Sunday, November 3, 2019

ভাইফোটার শ্রেষ্ঠ উপহার --- সবিতা কুইরী

ভাইফোটার শ্রেষ্ঠ উপহার  ---   সবিতা কুইরী




'ভাইফোটা তে রাগ করেছে বোন
  হয় না কেন তার কপালে ফোটা
দাদা তাকে দেয় উপহার বটে
  একবার উচিত উল্টো টা তো ঘটা।
  দাদা তখন বলবে কথাখানা
যম দিল যমুনা  কে ফোটা
  আমি আমার বোন কে দিলাম সেটা
যমের দুয়ারে পড়ল এবার কাঁটা।'

ভাইফোটা ভাইবোনের এক মধুর সম্পর্কের বহিঃপ্রকাশ ।নিবিড় বন্ধন।এরকম মধুর রীতিনীতি যিনি প্রথম চালু করেন তাকে কুর্নিশ না জানিয়ে পারা যায় না।বোন বা দিদি ভাই এর দীর্ঘায়ু কামনা করে মঙ্গলারতির মাধ্যমেই কপালে জয়ের টিকা পরিয়ে দেওয়াই এই উৎসবের মূল বিষয় ।
 

এই রীতির মূলে বোনের কাছে বা দিদির কাছে ভাই বা দাদা থাকাটা আবশ্যিক।না থাকলে সেই ফোটা চৌকাঠ দেওয়ার রীতি আছে অনেক টা মড়ার উপর খাঁড়ার ঘায়ের মতো। এখানেই আমার যত আপত্তি ।আপনাদের মনে হয় না কি বোন কে আরো মনে করানো যে তুমি হচ্ছ সেই হতভাগ্য বোন যার ভাই নেই বলে চৌকাঠ ।
 
 
অর্থাৎ মেয়েদের মূল্য কে যেন আরেক ধাপ নিচে নামানো।এখানে এক বোন আর একটি বোনকে ফোঁটা দেওয়ার রীতি থাকলে এমন টা কি হত?নাকি মেয়ে দের সম্মান জানানো মানে বেশি কিছু দিয়ে দেওয়া ।
 

এই তো আমাদের সভ্যতা এই তো আমাদের  সমাজ ব্যবস্থা যেখানে একটা জড়বস্তুকে ভায়ের  বিকল্প হিসাবে ধরে নেওয়া হলেও জ্যান্ত বোনকে ধরা হয় না।
ভাই ফোঁটার পাশাপাশি  ভাই এর কল্যাণে রাখিবন্ধন ও অনেকটা এরকম।আবার জামাই এর সম্মানে জামাই ষষ্ঠী  যা পুরুষ শাসিত সমাজ কে মজবুত করার একটা প্রচেষ্টা ছাড়া আর কিছুই  না।
 


ভাইফোটা তে বোন লাগবেই ভাই না হলেও  ভাই ফোঁটা হবে চৌকাঠ তো আছে। কিন্তু বোন না থাকলে সেটা কি করে সম্ভব হবে তার বিকল্প হিসেবে কিছুই ভাবনা নেই কারুর।
মেয়ে দের কল্যাণে দাদা ভাই মা বাবা পালন করেন এরকম একটা রীতি  দেখাতে পারেন আপনারা? সমাজের সৃষ্টি করে যে নারী  তার কল্যাণে কিছু  কি করার নেই?
 

অপমান  ছাড়া  কি পায় তারা ?শারীরিক গঠনের দিক থেকে ভিন্ন বলেই কি এই ভেদাভেদ।পৃথিবীর আলো যে দেখাই তাকেই পৃথিবীর আলো দেখতে দিতে এত খুনখারাবি ?

আবার বাবা মার ভালোবাসার ফসল আমরা প্রত্যেকেই সেটা ভুলে গিয়ে  কিভাবে নারী কে ধর্ষণের প্রবৃত্তি জাগে?একবারও কি নিজের মা কে মনে পড়ে না?

   যাইহোক  বিষয়  টা যখন ভাইফোটা সকল ভাইদের কাছে অনুরোধ  আমাদের পূর্বপুরুষদের রীতি নীতি যা আছে তাকে সম্মান জানিয়ে ভাইবোনের সম্পর্ক কে আরো মজবুত হোক  এটাই কামনা করি।
 

যদি যম যমুনা কে ফোঁটা দেওয়ার রীতি টা ও চালু হয় আর ভাই বোনকে যদি কপালে একটা ফোটা এঁকে দেয় তবে কিছু ক্ষতি হবে বলে আমার  তো মনে হয় না।বরং ভাই এর কাছে পাওয়া এটাই তার শ্রেষ্ঠ উপহার  হতে পারে ।